Advanced
Search
  1. Home
  2. ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় ‘লবঙ্গ চা’

ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় ‘লবঙ্গ চা’

  • 04/04/2024
  • 0 Likes
  • 28 Views
  • 0 Comments

মানুষ যেমন আছে, তেমনি তাদের সাথে আছে অনেক সমস্যা। ছোট থেকে বড় নানা রোগে আক্রান্ত হতে হয় এই মানবদেহকে। কিন্তু আমাদের প্রকৃতিতে লুকিয়ে আছে রোগ থেকে মুক্তির উপায়।

ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় ‘লবঙ্গ চা’
ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় ‘লবঙ্গ চা’

চা শুধু তৃপ্তির উৎসই নয়, রোগ নিরাময়ও বটে। লবঙ্গ চা প্রাকৃতিক শক্তিতে পরিপূর্ণ। এই বিশেষ চা রোগ থেকে মুক্তি পেতে নানাভাবে সাহায্য করে। লবঙ্গে উপস্থিত ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন কে, ফাইবার, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়াম শরীরের নানাভাবে উপকার করে। আসুন জেনে নিই লবঙ্গ চায়ের নয়টি আশ্চর্যজনক উপকারিতা সম্পর্কে-

দাঁতের ব্যথা কমায়:

লবঙ্গে উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্যগুলি এমনভাবে প্রতিক্রিয়া করে যা অবিলম্বে দাঁতের ব্যথা উপশম করে। তাই এখন থেকে দাঁতে অস্বস্তি বা মাড়ি ফুলে যাওয়ার মতো কিছু দেখা দিলে এক কাপ গরম লবঙ্গ চা পান করুন। সুবিধা দেখতে পাবেন।

ক্যান্সার দূরে থাকে:

বেশ কিছু কেস স্টাডিতে দেখা গেছে যে নিয়মিত এক কাপ চা লবঙ্গ দিয়ে খেলে শরীরে ক্যান্সার প্রতিরোধক গুণের পরিমাণ এতটাই বেড়ে যায় যে ক্যান্সার কোষের ঝুঁকি কমে যায়।

শুধু তাই নয়, শরীরের কোনো অংশে টিউমার হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়। প্রসঙ্গত, লবঙ্গে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

সাইনাসের প্রদাহ কমায়:

আপনি কি মাঝে মাঝে সাইনাসের আক্রমণে ভুগছেন? তাহলে এই নিবন্ধটি আপনার জন্য লেখা। কারণ এই ধরনের সমস্যা দূর করতে লবঙ্গ উপকারী হতে পারে, এ সম্পর্কে কী জানা ছিল?

আসলে এই প্রাকৃতিক উপাদানটির শরীরে উপস্থিত Iguenal নামক একটি উপাদান সাইনাসের ব্যথা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই কারণেই আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞরা এখনও এই ধরনের রোগের চিকিৎসার জন্য লবঙ্গের উপর নির্ভর করে।

হজমশক্তির উন্নতি ঘটায়:
দুপুরে বা রাতের খাবারের আগে লবঙ্গ দিয়ে তৈরি এক কাপ গরম চা পান করলে হজমের অ্যাসিডের ক্ষরণ বাড়ে। এর সাথে পাকস্থলীতে রক্ত চলাচলেরও উন্নতি ঘটে। ফলে খাবার হজম হতে সময় লাগে না

তাই কম মসলাযুক্ত খাবার খেয়েও যাদের বদহজম হয়, তারা লবঙ্গ চা পান করে দেখতে পারেন। এটা অবশ্যই উপকৃত হবে।

সারা শরীরে রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি পায়:
বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে শুধু লবঙ্গ চা খেলে শরীরের অন্দরে এমন কিছু পরিবর্তন হয় যা শরীরের প্রতিটি কোণায় অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বাড়িয়ে দেয়।

ফলে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের কর্মক্ষমতা যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনি দেহের গতিশীলতাও দৃশ্যমানভাবে বৃদ্ধি পায়।

রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে:
গত কয়েক দশকে আমাদের দেশে ডায়াবেটিসের মতো মারণ রোগের প্রকোপ যে হারে বেড়েছে তাতে প্রত্যেকের জন্য প্রতিদিন লবঙ্গ চা খাওয়া জরুরি হয়ে পড়েছে।

কারণ এই প্রাকৃতিক উপাদানটিতে থাকা নাইজেরিসিন নামক একটি উপাদান শরীরে প্রবেশ করে ইনসুলিনের কার্যকারিতা বাড়াতে শুরু করে। ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে না।

বাতের ব্যথা কমে:
লবঙ্গে উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য হাড়ের রোগের প্রকোপ কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। এক্ষেত্রে এক কাপ লবঙ্গ চা বানিয়ে কয়েক ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন।

তারপরে 20 মিনিটের জন্য ব্যথার জায়গায় ঠান্ডা চা লাগান এবং আপনি দেখতে পাবেন যে ব্যথা পুরোপুরি কমে গেছে। প্রসঙ্গত, এই ঘরোয়া উপায়টি জয়েন্টের ব্যথার পাশাপাশি পেশির ব্যথা ও ফোলা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

ত্বকের সংক্রমণের চিকিৎসায় উপকারী:
এখন থেকে যেকোনো ধরনের ত্বকে ইনফেকশন হলে চোখ বন্ধ করে ক্ষতস্থানে লবঙ্গ চা লাগাতে ভুলবেন না। এটা করলে দেখবেন ব্যথা কমতে একটুও সময় লাগবে না।

আসলে, লবঙ্গে উপস্থিত উদ্বায়ী তেল শরীরে উপস্থিত বিষাক্ত উপাদানগুলিকে বের করে দেয়। এটি জীবাণুকেও মেরে ফেলে। ফলে সংক্রমণজনিত ব্যথা কমাতে একেবারেই সময় লাগে না।

তাৎক্ষণিকভাবে জ্বরের প্রকোপ কমায়:
লবঙ্গে উপস্থিত ভিটামিন কে এবং ই ইমিউন সিস্টেমকে এতটাই শক্তিশালী করে যে শরীরে উপস্থিত সমস্ত ভাইরাস মেরে ফেলে। ফলে ভাইরাল জ্বরের প্রকোপ কমতে সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, একবার ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী হয়ে গেলে, সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও কমে যায়।

Leave Your Comment

error: Content is protected !!