Advanced
Search
  1. Home
  2. ওষুধ ছাড়াই গ্যাসট্রিক থেকে মুক্তি পাওয়ার চমৎকার উপায়।

ওষুধ ছাড়াই গ্যাসট্রিক থেকে মুক্তি পাওয়ার চমৎকার উপায়।

  • 13/03/2024
  • 0 Likes
  • 34 Views
  • 0 Comments

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় প্রায় সবাই ভোগেন। ভারী খাবারের পর, চুকা ঢেঁকুর, গলা জ্বলা, বিস্বাদ মুখ- – এগুলো গ্যাস্ট্রাইটিসের লক্ষণ। তাই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সবাই ওষুধের দিকে ঝুঁকে।

কিন্তু জানেন কি, এতে সাময়িক কিছু স্বস্তি পাওয়া গেলেও এই অভ্যাস সত্যিই ক্ষতিকর।

ওষুধ ছাড়াই গ্যাস্ট্রাইটিস থেকে মুক্তি পাওয়ার চমৎকার উপায়।
ওষুধ ছাড়াই গ্যাস্ট্রাইটিস থেকে মুক্তি পাওয়ার চমৎকার উপায়।

চিকিৎসকদের মতে, চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ঘন ঘন অ্যাসিড কমানোর ওষুধ খাওয়া আসলে ক্ষতিকর। ফলে ভারী খাবার খেলে অ্যাসিডের অভাবে প্রোটিন হজম হয়। খাবারের প্রক্রিয়া ধীর হয়ে গেলে পেট ভারী হওয়া, গলায় খাবার আসা, বমি, বদহজম ইত্যাদি হতে পারে।

তাই গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ ছেড়ে কিছু নিয়ম মেনে চলুন। যদি আপনি সঠিকভাবে বাস করেন তবে গ্যাস্ট্রিক প্রান্তের কাছাকাছি যেতে পারে না। চলুন জেনে নেই ওষুধ ছাড়াই গ্যাস্ট্রাইটিস থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়-

1. কখনোই খালি পেটে চা পান করবেন না।

2. লেবু চা এবং গ্রিন টি পান করলেও ব্যথা বাড়তে পারে।

3. দুটি প্রধান খাবারের মধ্যে 4 থেকে 5 ঘন্টার ব্যবধান রাখুন।

4. খাওয়া ও ঘুমানোর সময় ঠিক রাখুন।

5. সিগারেট ও অ্যালকোহল পানে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বাড়ে। তাই মদ্যপান এবং ধূমপান উভয়ই ত্যাগ করাই ভালো।

6. ব্যথার ওষুধ খেয়েও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বেড়ে যায়। ব্যথার ওষুধ না খেয়ে ব্যথার কারণের চিকিৎসা করুন।

7. রাতে পার্টি বা দাওয়াত থাকলে দিনের বেলা হালকা খাবার খান। যাওয়ার আগে কিছু খেয়ে নিন। ক্ষুধা কম থাকবে, বেশি খাওয়ার ভয় থাকবে না।

8. চর্বিযুক্ত খাবার, মিষ্টি, দুধ, কফি, শুকনো লঙ্কা, গোলমরিচ, টক, খুব ঠান্ডা বা গরম খাবারের কারণে বুকজ্বালা হতে পারে।  আপনার নিয়মিত খাদ্য থেকে বেশী খাবারগুলি এড়িয়ে চলুন।

9. নিয়মিত ব্যায়াম করুন ।

10. খাওয়ার দুই ঘণ্টা পর ঘুমাতে যান।

11. মানসিক চাপের কারণে শুধু বুকজ্বালা/গ্যাস্ট্রিকই বৃদ্ধি পায় না, হৃদরোগ সহ আরও অনেক জটিল রোগও হতে পারে। তাই মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

12. বাসায় ফিরে সঙ্গে সঙ্গে শুয়ে না থেকে কিছুক্ষণ হাঁটুন। অন্তত দেড় থেকে দুই ঘণ্টা পর ঘুমাতে যান।

13. হঠাৎ গ্যাসের সমস্যা হলে অল্প অল্প করে ঠান্ডা পানি পান করতে থাকুন। 4 থেকে 6 চামচ অ্যান্টাসিড খান যদি দুই থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে ব্যথা না কমে। দুই-তিন ঘণ্টা পর আবার খেতে পারেন। ব্যথা কমার পরও দু-একদিন হালকা খাবার খান।

Leave Your Comment

error: Content is protected !!